বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৭ জানুয়ারি ২০১৭

পানি উন্নয়ন বোর্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের জন্য ২০৬৭ কোটি টাকার ৬টি নতুন প্রকল্প গ্রহণ


প্রকাশন তারিখ : 2017-01-27

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল, চট্টগ্রাম অঞ্চলের জন্য ২ হাজার ৬৭ কোটি টাকার আরো ৬টি নতুন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ২০১৮, ২০১৯ এবং ২০২০ সালে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্তমান অর্থবছরেই এ প্রকল্পসমূহ গ্রহণ করা হয়।
বৃহস্পতিবার দশম জাতীয় সংসদের পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ২৫তম বৈঠকে নতুন গৃহীত এ প্রকল্পসমূহের প্রতিবেদন পেশ ও এ বিষয়ে আলোচনা করা হয়।
সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে কমিটির সভাপতি রমেশ চন্দ্র সেন সভাপতিত্ব করেন।
কমিটির সদস্য ও পানিসম্পদ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, মোঃ ফরিদুল হক খান, রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক, মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, অনুপম শাহজাহান এবং মোছা. সেলিনা জাহান লিটা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
বৈঠকে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল, চট্টগ্রাম অঞ্চলে সাম্প্রতিক সমাপ্ত ও চলমান প্রকল্পগুলোর প্রতিবেদন পেশ ও আলোচনা হয়। ওই অঞ্চলসমূহে ২০১০ ও ২০১৩ সালে ৮৮ কোটি টাকার ২টি প্রকল্পের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। ২০১৭ ও ২০১৮ সালে সমাপ্তির জন্য ৭৫৯ কোটি ১ লাখ টাকার ৫টি প্রকল্প চলমান রয়েছে।
বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যগণকে ৩ ও ৪ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের প্রকল্পসমূহ সরেজমিন পরিদর্শনের জন্য সুপারিশ করা হয়। পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় এ প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়ন করছে।
বৈঠকে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বাইরে যে সকল মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠান পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে প্রকল্প নিয়ে বাস্তবায়ন কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে, সে সকল মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশ পানি আইন-২০১৩ অনুযায়ী ওয়াটার রিসোর্সেস প্ল্যানিং অর্গানাইজেশনের (ওয়ারপো) ছাড়পত্র নিয়ে কাজ করার এবং এর ব্যত্যয় হলে ওই সকল প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। ওয়ারপো’র চলমান কার্যক্রমের উপরও প্রতিবেদন উপস্থাপন ও বিস্তারিত আলোচনা হয়।
আজকের এ বৈঠকে ২৪তম বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা ও এসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।
বৈঠকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাজে গতি আনার জন্য বর্তমান অর্থবছরে রাজস্ব খাতে অতিরিক্ত বাজেট বরাদ্দের পাশাপাশি শূন্য পদে দ্রুত জনবল নিয়োগ করারও সুপারিশ করা হয়।
বৈঠকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।