বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ৩ পৌষ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২২nd মার্চ ২০১৭

দেশের সকল জনগণের জন্য সুপেয় পানি নিশ্চিত করা হবে : এলজিআরডি মন্ত্রী


প্রকাশন তারিখ : 2017-03-22

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশের সকল জনগণের জন্য সুপেয় পানি নিশ্চিত করা হবে। পানির সুষম ব্যবহার না করতে পারলে ভবিষ্যতে জনগণকে রক্ষা করা যাবে না। সবার জন্য সুপেয় পানির সংস্থান করতে না পারলে নৈতিকভাবে আমরা অপরাধী হবো।
মন্ত্রী গতকাল রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা ও রাজশাহী ওয়াসা এবং ইউনিসেফ-এর উদ্যোগে “বিশ্ব পানি দিবস-২০১৭” উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন - প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি)-এর মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেকসহ চট্টগ্রাম, খুলনা ও রাজশাহী ওয়াসা’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকবৃন্দ।
মন্ত্রী বলেন, জনসংখ্যার ঘনত্ব বিবেচনায় আমাদের পানির উৎস সীমিত। বৃহৎ জনসংখ্যাকে সুপেয় পানি প্রদান করতে গিয়ে ভূ-গর্ভস্থ পানি অধিক ব্যবহারের ফলে পানির স্তর ক্রমশ নিচে নেমে যাওয়ায় জনগণ আর্সেনিক ও অন্যান্য দূষণ সংক্রান্ত ঝুঁকির মুখে পড়েছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য ভূ-পৃষ্ঠের পানির ব্যবহার বাড়াতে হবে। সারাদেশব্যাপী প্রাকৃতিক জলাধারসমূহকে রক্ষা করার মাধ্যমে এবং পুকুর ও খাল খনন করে ভূ-পৃষ্ঠের পানিকে ব্যবহার করতে হবে।
মন্ত্রী বলেন, সমন্বিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নদী খনন করা হবে। প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি পানির পয়েন্ট তৈরি করা হবে। ঐ পানির কেন্দ্রকে ঘিরে ভবিষ্যতে জনবসতি গড়ে তোলার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। পানিকে কেন্দ্র করে গ্রাম ব্যবস্থা গড়ে তোলা হবে। যাতে নাগরিকগণকে প্রয়োজনীয় সকল সুযোগ-সুবিধা খুব সহজেই প্রদান করা যায়। ভূ-গর্ভস্থ পানির পরিবর্তে ভূ-উপরিস্থ পানির ব্যবহার বাড়িয়ে আগামী ৫-৭ বছরের মধ্যে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর পূর্বের পর্যায়ে নিয়ে আসা হবে। তিনি বলেন, পানির অপচয়ের প্রবণতা আমাদের রক্তে মিশে গেছে। এ প্রবণতা থেকে বেরিয়ে এসে পানির সুষম ব্যবহারের জন্য মন্ত্রী সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
মন্ত্রী দৈনন্দিন গৃহস্থালী ও শিল্প কারখানায় ব্যবহার্য পানি যেন অপরিশোধিত অবস্থায় প্রাকৃতিক জলাধারে না মিশে, সেদিকে সংশ্লিষ্ট সকলকে সজাগ থাকার নির্দেশনা দেন। তিনি বলেন, পানি ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ অচিরেই বিশ্বের শীর্ষ কাতারে অবস্থান করবে।
মন্ত্রী এসডিজি অর্জনে পানির গুরুত্বের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর হাই লেভেল ওয়াটার প্যানেলের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশের ভূমিকার কথা উল্লেখ করেন। প্রতি বছর ২২ মার্চ বিশ্ব পানি দিবস পালন করা হয়।