বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ৪ পৌষ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ এপ্রিল ২০১৭

ভোলায় মহিলাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ৩ মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ চলছে


প্রকাশন তারিখ : 2017-04-04

ভোলা জেলায় বেকার মহিলাদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ৩ মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ চলছে। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের মাধ্যমে ৫টি ট্রেডে প্রশিক্ষণ চলছে। ‘জীবিকায়নের জন্য মহিলাদের দক্ষতা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ শীর্ষক কর্মসূচি’র মাধ্যমে সেলাই, ব্লক-বাটিক, ক্রিস্টালের শোপিস ও ক্যানেল ব্যাগ তৈরি, ফাস্ট ফুড প্রস্তুত ও বিউটিফিকেশন এই ৫টি ট্রেডে ১০ জন করে মোট ৫০ জন নারী প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।
জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জেবুন্নেছা জানান, এখান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে অনেক নারীই বিউটি পার্লারে কাজ করছে, সেলাই’র কাজ করছে, শোপিস, ব্যাগ ইত্যাদি তৈরি করে অবস্থান পরিবর্তন করেছে। প্রশিক্ষণ শেষে প্রত্যেককে সনদ বিতরণ করা হয়, যা বিভিন্ন চাকরির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। এ ছাড়া প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের জন্য ক্ষুদ্র ঋণের ব্যবস্থাও রয়েছে। আগামী অর্থবছর থেকে জেলার অন্যান্য উপজেলাগুলোতে এই ধরনের প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করা হবে বলে জানান জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা।
মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, চলতি মাসের ১ তারিখ থেকে এই প্রশিক্ষণ শুরু হয়েছে। চলবে জুন মাস পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শহরের গাজীপুর রোডস্থ মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে এই প্রশিক্ষণ চলছে। প্রতি ৩ মাস করে বছরে ৪টি প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়। সম্পূর্ণ আয়বর্ধক কর্মকান্ডের মাধ্যমে মহিলাদের স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যেই সরকার এই প্রকল্প চালু করেছে।
প্রশিক্ষণের জন্য অবশ্যই সর্বনিম্ন পঞ্চম শ্রেণী পাস ও ১৮ থেকে ৩৫ বছরের হতে মধ্যে হবে। পূর্বে প্রশিক্ষণার্থীদের প্রণোদনা হিসেবে দৈনিক ২০ টাকা দিলেও বর্তমানে তা বাড়িয়ে ৬০ টাকা করা হয়েছে। এতে করে প্রশিক্ষণ নিতে আসা নারীরা বাড়তি উৎসাহ পান।
মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আরো বলেন, এখানে নারীদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি নারীর অধিকার, নারীর ক্ষমতায়ন, নিরাপদ মাতৃত্ব, কিশোরীদের যৌন স্বাস্থ্য ইত্যাদি বিষয়েও ধারণা দেয়া হয়। নারী নির্যাতন ও বাল্যবিয়ে বন্ধেও তাদের সচেতন করা হয়। ফলে দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বাড়ছে নারীদের জ্ঞানের পরিধি। স্বাবলম্বী হচ্ছেন অনেক নারী।