বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ১ পৌষ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd এপ্রিল ২০১৭

ইউনিয়ন পর্যায়ে ই-কমার্স চালুর পথ সুগম হয়েছে


প্রকাশন তারিখ : 2017-04-02

সরকার তথ্যপ্রযুক্তিকে গ্রাম পর্যন্ত পৌঁছে দেয়ায় ইউনিয়ন পর্যায়ে ই-কমার্স চালুর পথ সুগম হয়েছে। তাই এখন উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে দেশের ৪ হাজার ৫৫০টি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে (ইউডিসি) ই-কমার্স চালুর পরিকল্পনা করছে সরকার।
ইতোমধ্যেই ইউডিসির প্রায় ১০ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রতিবেদন ও ফিচার লেখার পাশাপাশি আউটসোর্সিং ও ই-কমার্সের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে, যাতে তারা তৃণমূল পর্যায়ে সরকারের উন্নয়ন ও সাফল্যের তথ্য তুলে ধরার পাশাপাশি আউটসোর্সিং ও ই-কমার্স পরিচালনা করে প্রতিটি ইউডিসিকে মিনি বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং সেন্টার (বিপিও) হিসেবে গড়ে তুলতে পারে।
গতকাল মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচি ও তথ্যসেবা বার্তা (টিএসবি)’ আয়োজিত ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের (ইউডিসি) উদ্যোক্তাদের প্রতিবেদন ও ফিচার লিখন এবং আউটসোর্সিং ও ই-কমার্স বিষয়ক এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক এসব কথা বলেন।
জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় বক্তব্য দেন যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ও সিনিয়র সাংবাদিক অজিত কুমার সরকার ও তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচি পরিচালক ড. মো. মেহেদেী হাসান।
এ সময় তৃণমূলের তথ্যজানালা কর্মসূচির সার্বিক কার্যক্রমের উপর বক্তব্য দেন টিএসবির নির্বাহী সম্পাদক ড. অলিউর রহমান।
বনমালী ভৌমিক বলেন, সরকার সব ইউনিয়নে উচ্চগতির ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি পৌঁছে দেয়ার জন্য ইনফো-সরকার-৩ ও এস্টাবলিশিং ডিজিটাল কানেক্টিভিটি নামে দুটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। এ দুটি প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দেশের সব ইউনিয়ন উচ্চ গতির ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির আওতায় চলে আসবে। তখন বাংলাদেশের গ্রামেও গড়ে উঠবে ইনফরমেশন সেন্টার।
অজিত কুমার সরকার বলেন, সামাজিক নিরাপত্তা কার্যক্রমসহ উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রাম বাংলা পর্যন্ত বিস্তৃত। দেশের ৪৫৫০টি ইউনিয়নের একটি ডায়নামিক ওয়েবসাইট রয়েছে। এর সাথে রয়েছে সামাজিক গণমাধ্যম। তৃণমূলের এসব উন্নয়নের তথ্য ও সংবাদ ইউডিসি উদ্যোক্তারা মানুষকে জানাবে।