বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ মার্চ ২০১৭

বাংলাদেশ- শ্রীলঙ্কা ২য় ওয়ানডে ম্যাচ পরিত্যক্ত বৃষ্টির কারণে


প্রকাশন তারিখ : 2017-03-29

বিশ্বের ৪১তম ও বাংলাদেশের পঞ্চম বোলার হিসেবে ডাম্বুলায় আজ শ্রীলংকার বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে হ্যাটট্রিক করেন বাংলাদেশের পেসার তাসকিন আহমেদ। তার এমন অর্জনের ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়ে গেলো। শ্রীলংকার ব্যাটিংয়ের পরই বৃষ্টি নামে। পরবর্তীতে বৃষ্টির তেজ অব্যাহত থাকলে ম্যাচটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আম্পায়াররা। ফলে ডাম্বুলায় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ৯০ রানে জয় পাওয়ায় তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়েই থাকলো বাংলাদেশ। আগামী ১ এপ্রিল কলম্বোর সিংহলিজ স্পোটর্স ক্লাব মাঠে বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে দশটায় শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে। 
রনগিরি ডাম্বুলা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলংকার অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গা। ব্যাটিং-এ নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি শ্রীলংকা। দলীয় ১৮ রানে লংকানদের উদ্বোধনী জুটি ভেঙ্গে দেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ৯ রান করে আউট হন ওপেনার দানুষ্কা গুনাথিলাকা। 
এরপর শ্রীলংকার রানের চাকা ঘুরিয়েছেন থারাঙ্গা ও তিন নম্বরে নামা কুশল মেন্ডিস। বাংলাদেশ বোলাদের সামনে নিজেদের কৌশলে ব্যাট চালান তারা। এতে সাফল্য পান থারাঙ্গা ও মেন্ডিস। ৬৩ বলের অর্ধশতকের জুটি পেয়ে যান তারা। এরপর দলের স্কোরের সেঞ্চুরিও তারা পূর্ণ করেন ইনিংসের ১১৯তম বলে। 
থারাঙ্গা-মেন্ডিস জুটি ধীরে ধীরে ভয়ংকর হবার পথেই হাটচ্ছিলো। কিন্তু সেই পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ান মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। রান আউটের ফাঁদে থারাঙ্গার বিদায় নিশ্চিত করেন তিনি। ৯টি চারে ৭৬ বল মোকাবেলায় ৬৫ রান করেন শ্রীলংকার হয়ে ২শ’তম ম্যাচ খেলতে নামা থারাঙ্গা। সেই সাথে মেন্ডিসের সাথে ১৩২ বলে গড়ে উঠা ১১১ রানের জুটিও ভেঙ্গে যায়। 
অধিনায়ক ফিরে যাবার পরও, শ্রীলংকার রান বেড়েছে বলের সাথে পাল্লা দিয়ে। সেই কাজটি তৃতীয় উইকেট জুটিতে করেছেন মেন্ডিস ও উইকেটরক্ষক দিনেশ চান্ডিমাল। ৭৩ বলে ৮৩ রানের জুটি গড়েন তারা। ফলে দলীয় স্কোর ২শ’ পেরিয়ে বড় সংগ্রহ দাঁড় করানোর পথে হাটতে থাকে। 
চান্ডিমাল ২৪ রান করে বিদায় নিলেও, ২৪তম ম্যাচে এসে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম শতকের দেখা পান মেন্ডিস। শতকের পর খুব বেশি দূর যেতে পারেননি তিনি। ৯টি চার ও ১টি ছক্কায় ১০৭ বলে ১০২ রান করে থামেন মেন্ডিস। তাকে শিকার করেন বাংলাদেশের পেসার তাসকিন আহমেদ। ম্যাচে নিজের ষষ্ঠ ওভারে এসে প্রথম উইকেট শিকার করেন তিনি। 
দলীয় ২১৬ রানে শ্রীলংকার চতুর্থ উইকেট তুলে নেয়ার পর, স্বাগতিকদের রানের লাগাম টেনে ধরার পরিকল্পনা করছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু সেটি হতে দেননি আসলে গুনারতেœ ও মিলিন্দা সিরিবর্ধনে। পঞ্চম উইকেটে ৪৮ বলে ৫৫ রান যোগ করেন তারা। এতে ৩শ’ ছাড়িয়ে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখছিলো শ্রীলংকা। এক পর্যায়ে ৪৯ ওভারে ৭ উইকেটে ৩০৬ রানে পৌঁছায় লংকানরা। 
শেষ ওভারে বল হাতে নেন বাংলাদেশের তাসকিন। প্রথম ডেলিভারিতে ১ ও দ্বিতীয় ডেলিভারিতে ৪ রান দেন তিনি। এরপর জ্বলে উঠেন এই স্পিডস্টার। পরের তিন বলে টানা তিন উইকেট নিয়ে বিশ্বের ৪১তম ও বাংলাদেশের পঞ্চম বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন তাসকিন। তার শিকার হয়ে গুনারতেœ ৩৯, সুরাঙ্গা লাকমল ও নুয়ান প্রদীপ শূন্য রানে থামেন। তাসকিন ৮ দশমিক ৫ ওভারে ৪৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন। আর ৩১১ রানে গুটিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে ষষ্ঠ সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ দাঁড় করায় শ্রীলংকা। 
স্কোর কার্ড :
শ্রীলংকা ইনিংস :
দানুষ্কা গুনাথিলাকা ক মুশফিকুর ব মাশরাফি ৯
উপুল থারাঙ্গা রান আউট (মাহমুদুল্লাহ) ৬৫
কুশাল মেন্ডিস ক এন্ড ব তাসকিন ১০২
দীনেশ চান্ডিমাল এলবিডব্লু ব মুস্তাফিজুর ২৪ 
আসলি গুনারতে ক সৌম্য ব তাসকিন ৩৯
মিলিন্দা সিরিবর্ধনে ব মিরাজ ৩০
থিসারা পেরেরা রান আউট (মুশফিকুর) ৯
দিলরুয়ান পেরেরা রান আউট (মুশফিকুর) ৯
নুয়ান কুলাসেকেরা অপরাজিত ২
সুরাঙ্গা লাকমল ক মুশফিকুর ব তাসকিন ০
নুয়ান প্রদীপ ব তাসকিন ০
অতিরিক্ত (বা-৪, লে বা-১০, ও-৭, নো -১) ২২
মোট (অলআউট, ৪৯.৫ ওভার) ৩১১ 
উইকেট পতন : ১/১৮ (গুনাথিলাকা), ২/১২৯ (থারাঙ্গা), ৩/২১২ (চান্ডিমাল), ৪/২১৪ (মেন্ডিস), ৫/২৭১ (সিরিবর্ধনে), ৬/২৮০ (পেরেরা), ৭/৩০০ (পেরেরা), ৮/৩১১ (গুনারতে), ৯/৩১১ (লাকমল), ১০/৩১১ (প্রদীপ)।
বাংলাদেশ বোলিং :
মাশরাফি : ১০-১-৫৫-১ (ও-১), 
মিরাজ : ১০-০-৫০-১, 
মুস্তাফিজুর : ৮-০-৬০-১ (নো-১, ও-২),
তাসকিন : ৮.৫-০-৪৭-৪,
সাকিব : ১০-০-৫৯-০ (ও-১), 
মোসাদ্দেক : ৩-০-২৬-০। 
ফল : বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত। 
সিরিজ : তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকলো বাংলাদেশ।