বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন
  • ৩ পৌষ, ১৪২৪
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ ডিসেম্বর ২০১৭

ভান্ডারিয়ায় ১১ কোটি টাকা ব্যয়ে ১১টি পানি শোধনাগার


প্রকাশন তারিখ : 2017-12-04

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া পৌরসভায় ভারতের আর্থিক অনুদানে ১১টি সুপেয় পানি শোধনাগার নির্মিত হচ্ছে।
মোট ১১ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে এগুলো নির্মাণ করা হবে। বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা গতকাল দুপুরে পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া পৌরসভা এলাকায় পানি শোধনাগার নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।
পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ সম্প্রতি বাংলাদেশ সফরকালে ভারতীয় অনুদানে উন্নয়ন প্রকল্প নির্মাণের ব্যাপারে যেসব চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে তার মধ্যে এ শোধনাগারও রয়েছে।
ভারতীয় হাইকমিশনার গতকাল দুপুরে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে ভান্ডারিয়ায় আসেন এবং শোধনাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন শেষে স্থানীয় মজিদা বেগম মহিলা কলেজ প্রাঙ্গণে এক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেন।
পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন।
তিনি বলেন, বন্ধুপ্রতীম দেশ ভারত ভান্ডারিয়ায় সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য আজ যে প্রকল্পের সূচনা করলো সেজন্য এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে ‘আমি হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলাকে ধন্যবাদ জানাই’।
এ এলাকার মানুষ এ প্রকল্পের কারণে লবণাক্ত ও আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি পানের সুফল পাবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যা এলাকাবাসীর স্বাস্থ্য সেবায় কার্যকর ভূমিকা রাখবে।
হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, ভারত বাংলাদেশে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহন করেছে যা ‘আমাদের সম্পর্কের সবচেয়ে মূল্যবান ও উল্লেখযোগ্য বিষয়গুলোর একটি।’
গত ৫ বছরে ভারত সরকার বাংলাদেশে ১১০ কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ২৪টি প্রকল্প সম্পন্ন করেছে উল্লেখ কওে হাইকমিশনার বরেন, ‘আমি আন্তরিকভাবে আশা করছি এই ক্ষুদ্র অবদান বাংলাদেশে আমাদের বন্ধুদের জীবনে একটি গুণগত পরিবর্তন আনবে।’